‘এখনো কবরের মাটি ভেজা অথচ ২০ লক্ষ টাকা নিয়ে বড় বড় বাণী দিচ্ছে’

নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ঘরে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় নিহত দিয়া খানম মীমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম ও নিহত আবদুল করিম রাজীবের মা মনোয়ারা বেগম। ২ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে ২০ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র অনুদান নেয়ার পর এসব কথা বলেন তারা।

এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন লেখক ও ব্লগার নিঝুম মজুমদার।

সম্প্রতি তিনি তার ফেসবুকে লিখেছেন, পাব্লিক প্রতিদিন রাস্তায় দূর্ভোগ পোহায়। প্রতিদিন হত্যার শিকার হয়। প্রতিদিন দূর্ঘটনায় নিহত হয়। এদের সন্তান সারা জীবন সাফার করে। এরা ধর্ষনের শিকার হয় আবার এই পাব্লিক আন্দোলন শুরু হবার তিন দিনের মাথায় ভোল পালটে ফেলে বলে “বাচ্চারা ঘরে ফিরে যাও”

দেখেন না নিহত দিয়ার বাবা কিংবা আব্দুল করিমের স্বজন কি সুন্দর করে প্রধানমন্ত্রীর ২০ লক্ষ টাকার সঞ্চয়পত্র বগলদাবা করে বাসায় চলে গেলো আর যাবার আগে বলে গেলো বাচ্চারা ঘরে ফিরে যাও।

অথচ এই লোকের মেয়ের জন্য আজকে সবাই মাঠে ও রাস্তায়। কত বড় অকৃতজ্ঞ একটা লোক। একজন এথিকাল মানসিকতার লোক হলে তো এই টাকাতে তিনবার থু থু দিত। এখনো কবরের মাটি ভেজা, এখনো সেখানে চাক চাক রক্ত। এখনো সেই দূর্ঘটনার যায়গাটা রক্তে ভেজা রয়েছে আর তারই মধ্যে ২০ লক্ষ টাকার সঞ্চয় পত্র নিয়ে শালা বড় বড় বাণী দিচ্ছে!!

একজন ভদ্রলোক কি নিজের সন্তানের লাশ মাটিতে শুইয়ে দিয়ে ২০ লক্ষ টাকার সঞ্চয় পত্র নিয়ে বিক্রি হয়ে যেতে পারে? কিন্তু হয়েছে। দিয়ার বাবা আমার আর আপনার মতই পাব্লিক। সে কারনেই হয়েছে।

লক্ষ্য করে দেখুন। কয়েকদিন আগেও এক এম পি’র ছেলে এক লোককে রাস্তায় পিষে মেরে ফেল্লো। সেই হত্যাকান্ডের কি হোলো? সেই মন্ত্রীপূত্র শাবাবের বাপ নিহতের পরিবারকে ৫০ লক্ষ টাকা দিয়ে কিনে নিলো। ব্যস, মামলা খতম!