সরকার যদি গুজব ছড়াতে পারে জনগণও গুজব ছড়াতে পারে

যখন সরকার বেকায়দায় পড়ে, তখন নেট কানেকশন বন্ধ করে দেয়। সরকার তো জনমত প্রচারের কোন ব্যবস্থা রাখেনি। জনগণের পক্ষে কথা বলার কোন সুযোগ নেই। যখনই সরকারের অবস্থান বেকায়দায় পড়ে, তখনই সে সমস্ত মাধ্যমগুলো, যে সমস্ত মাধ্যমগুলোর দ্বারা সরকার সমালোচিত হয়, সেগুলো বন্ধ করে দেয়। এটাই স্বাভাবিক। সরকার রাষ্ট্র চালায় দমন করে। জনগণের মতামত নিয়ে তো রাষ্ট্র চালায় না।

যদি জনগণের মতামতে চলতো তাহলে এই ব্যাপারে সংসদে আলোচনা হতো, জনগণের সাথে কথা বলতো। সরকারের বিভিন্ন কথা বলি বলেই তো বলে গুজব ছড়ায়। সরকার তখন এগুলোকে বলে গুজব। সরকার যদি গুজব ছড়াতে পারে, জনগণও গুজব ছড়াতে পারে।

যে কোন শুরু তো সরকারই প্রথম করে। কাজেই এই সমস্ত গুজবের জন্যই আজকে আমাদের এই অবস্থা হয়েছে। পরিচিতি :মেজর (অব:) আক্তারুজ্জামান, সাবেক সংসদ সদস্য, বিএনপি ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক / মতামত গ্রহণ : মো.এনামুল হক এনা / সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদু্‌, সংবাদ উৎস- আমাদের সময়

২০-২১ আগস্টের টিকেট না পাওয়ার অভিযোগ যাত্রীদের

ঈদ উপলক্ষে বাসের অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু হয়েছে আজ মঙ্গলবার ভোরে। তবে প্রথম দিনই ২০ ও ২১ আগস্টের টিকেট না পাওয়ার অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা।রোববার থেকে বাসের অগ্রিম টিকেট বিক্রির কথা থাকলেও পরিবর্তিত পরিস্থিতির কারণে আজ ভোর ৬টা থেকে তা শুরু হয়।

শ্যামলী, হানিফসহ কয়েকটি বাস কাউন্টারে টিকেটপ্রত্যাশীদের লম্বা সারি লক্ষ করা গেছে। এর বিপরীত চিত্রও দেখে গেছে অনেক কাউন্টারে। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান অনলাইনে টিকেট বিক্রি করছে।

টিকেটপ্রত্যাশী একজন অভিযোগ করেন, ‘উনারা বলছেন যে ঈদের অগ্রিম টিকেট। কিন্তু রাত ৩টা থেকে বসে আছি। এখন পর্যন্ত উনারা কোনো টিকেট দিচ্ছেন না—২০-২১ তারিখের টিকেট।’আরেকজন টিকেটপ্রত্যাশী বলেন, ‘আগে থেকে লিখিত দিত যে না, ২০ তারিখের টিকেট দেওয়া যাবে না।

তাহলে আমরা আসতাম না। আমি আসছি সাভার থেকে।’টিকেটের আশায় দীর্ঘ সারিতে দাঁড়ানো এক বৃদ্ধ বলেন, ‘১৯-২০ তারিখের দিচ্ছেন না। কারণ বেশি দামের বেচার জন্য ওদের কাছে রাখতেছে। পরে আবার বেচবে।’

তবে আরেক যাত্রী টিকেট পেয়ে সন্তোষ প্রকাশ করলেন। তিনি বলেন, ‘ভোর ৬টার দিকে লাইনে দাঁড়াইছি। তো যেটা পাইছি আমি তাতে খুশি।’ বাস কাউন্টারের দায়িত্বে থাকা একজন বলেন, ‘২০ তারিখের শিডিউলটা দেওয়া হয় নাই। যেহেতু রাস্তায় জ্যাম হবে, কী হবে—এ কারণে আমরা আপাতত দু-একদিন পরে সিদ্ধান্ত নেব।’