গুরুতর অসুস্থ বিছানায় শুয়ে তরিকুলও আসামি’

দীর্ঘদিন থেকে গুরুতর অসুস্থ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামের নামেও পুলিশ নাশকতার মামলা দিয়েছে। অথচ তিনি শয্যাশায়ী। অন্যের সাহায্য ছাড়া তার পক্ষে চলাচল করা সম্ভব নয় বলে বিএনপি ও পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে বিএনপির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘এটা টাটকা ডাহা মিথ্যাচার। গুরুতর অসুস্থ মানুষ তরিকুল ইসলাম এ দেশের বর্ষীয়ান নেতা, তিনি যাবেন নাশকতা করতে?’

রিজভী বলেন, ‘আপনারা গোরস্তান থেকে লাশকে দিয়ে ককটেল ফাটাচ্ছেন, আপনারা হজব্রত পালনরত ব্যক্তির নামে একই সময়ে বাংলাদেশে নাশকতার মামলা দিচ্ছেন। আপনারা কি বিকৃত মনের অধিকারী হয়ে গেলেন? খালেদা জিয়ার প্রবীণ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন এবং রেজাক খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা নিতাই রায় চৌধুরীকেও আসামি করা হয়েছে।’

ওই নেতারা বিএনপি করেন বলেই তাদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন রিজভী। বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, ‘আগামী নির্বাচন সরকারি দলের নাগালের মধ্যে রাখতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিএনপিকে দমন করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। আইন, বিচার, মামলা, মোকাদ্দমা, সবই শেখ হাসিনার করায়ত্তে।’

রাজধানীর পল্টন থানায় এসব নেতাদের নামে মামলা হয়েছে বলে আমাদের সময়কে জানান দলটির সহদপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু। টিপুকেও এই মামলার আসামি করা হয়েছে। এ ছাড়া বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, শহীদুল ইসলাম বাবুল, বেলাল আহমেদ, কণ্ঠশিল্লী মনির খান, হাসান মামুন, রফিক শিকদার, তাহেরুল ইসলাম তৌহিদ, শেখ মো. শামীম, ফেরদৌসী আক্তার ওয়াহিদা, সাবেরা আলাউদ্দিন, কাজী মফিজুর রহমানসহ অজ্ঞাতনামা অসংখ্য নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগে মামলা দায়েরের নিন্দা জানান। অবিলম্বে তা প্রত্যাহারের দাবি জানান রিজভী।